মরহুম অধ্যক্ষ মহোদয়ের শেষ বাণী
বিস্মিল্লাহির রাহ্মানির রাহিম

সমস্ত প্রশংসা আল্লাহ্ রাব্বুল আ’লামীনের, যিনি আমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন ‘আশরাফুল মাখলুকাত’ হিসেবে। আমাদের এই শ্রেষ্ঠত্বের কানণও অল্লাহ বলে দিয়েছেন পবিত্র কুরআনে। ‘তোমরাই শ্রেষ্ঠ জাতি, তোমাদের কাজ মানুষকে কল্যাণের দিকে ডাকা, সৎকাজে আদেশ ও অসৎ কাজে বাধা প্রদান করা’। সুতরাং এটাই আমাদের শ্রেষ্ঠত্বের একমাত্র কারণ, যা অন্য কোন সৃষ্টির ওপর বর্তায় নি।  আমার এই ক্ষুদ্র জীবন পরিক্রমায় জীবন-জিজ্ঞাসার চরম তাগিদ থেকেই বেছে নিয়েছিলাম ‘শিক্ষকতা’ পেশাকে। কারণ শিক্ষাদানের চষধঃভড়ৎস ব্যতীত ‘আশরাফুল মাখলুকাত’ তৈরির আর কোন বিকল্প নেই।

আমার আশি বছরের জীবন পরিক্রমায় নিরলস, অবিরত সাধনা করেছি মানুষ গড়ার সুক্ষ্ম দিকনির্দেশনা তৈরির। আমার প্রচেষ্টায় শত বাধা-বিপত্তি, ঝড়-ঝঞ্ঝা, বৈরিতা কোন কিছুই আমাকে হতোদ্যম করতে পানে নি। যারই ফলশ্রুতিতে জীবন-সায়াহে এসে শুরু করি নবীন এই প্রতিষ্ঠান গড়ার কাজ। এর উদ্দেশ্য শুধুমাত্র ‘ফয়জুর রহমান’  এই নামটির মাইলফলক রেখে যাওয়া নয়। বরং আশরাফুল মাখলুকাত সৃষ্টির এই কারখানার নিরলস গতিকে যেন সমাজ ধরে রাখতে পারে, নিয়ে যেতে পারে এই প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে চরম কাক্সিক্ষত পর্যায়ে। আর এর জন্য প্রয়োজন ছাত্র, শিক্ষক অভিভাবকের নিরলস প্রচেষ্টা।

১৪০০ হিজরির চলমান জটিল সমাজ ও জীবনপ্রবাহে  ইসলামের অনুসরণ ও ইমান সংরক্ষণের এক কঠিন পরীক্ষায় আজ আমরা অবতীর্ণ। আমাদের কোমলমতি শিশুদের জন্য ভবিষ্যতের জীবন-যুদ্ধ আরো প্রধান শিক্ষকের বাণী
বিস্মিল্লাহির রাহ্মানির রাহিম

আলহাম্দুলিল্লাহ। আমাদের বিদ্যালয়-বার্ষিকী ‘প্রয়াস’ এর চুতুর্দশতক সংখ্যা প্রকাশিত হতে যাচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। মহান আল্লাহ রাব্বুল আ‘লামিনের দরবারে হাজার শোকর আদায় করছি। 

শিক্ষা একটি জতির উন্নতির পূর্বশত। শিক্ষার মাধ্যমেই একটি জাতির সভ্যতা ও সংস্কৃতিক বিকাশ ঘটে। শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমেই মানুষ মনুষ্যত্বের গুণাবলি  অর্জন করে, জীবনকে বিকশিত করে গড়ে উঠে যোগ্য নাগরিক হিসেবে এবং জাতিকে এগিয়ে নিয়ে যায় উন্নতির শিখরে। তবে আজ সমাজে বিরাজমান অস্থিরতা প্রমান করে যে, ধর্মীয় ও নৈতিক মূল্যবোধ বিবর্জিত শিক্ষা মানুষের প্রকৃত মানবিক গুণাবলির বিকাশ সাধনে অক্ষম। তাই নৈতিক মূল্যবোধ উজ্জীবিত একটি আদর্শ ও চরিত্রবান জাতি গঠন এ সময়ের এক ন্যায্য দাবী। এক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা শুধু অনস্বীকার্যই নয় বরং অপরিহার্য। এ বিশ্বাস ও উপলব্ধি বিবেচনায় আমরা বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ধর্মীয় ও নৈতিক মূল্যবোধের আদর্শকে শিক্ষার্থীদের চিন্তা- চেতনায়, জীবনবোধে প্রতিফলনের প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছি।

সমাজ যেমন সাহিত্য রুপায়ণে নিয়ামকের কাজ তেমনি সাহিত্যও সমাজ বিনির্মাণে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে। সাহিত্যিকগণ জাতির বিবেক। জাতি গঠনে তাঁদের দায়িত্ব ও অবদান অপরিমেয়। একটি আদর্শ ও চরিত্রবান জাতি গঠনের জন্য দরকার নৈতিকমূল্যবোধে উজ্জীবিত একদম মননশীল উদ্দীপ্ত মসি-সৈনিকের। আজকের শিশু, জাতির আগামী কর্ণধার। তাই আজকের এ ক্ষুদে মসি-সৈনিকরাই হবে আগামীদেনের জতি গঠনের গ্রতিভাধর কর্ণধার, এ প্রত্যাশা আমার

‘প্রয়াস’ প্রকাশে যাদের অবদান অপরিসীম তাদের জানাই আন্তরিক মোবারকবাদ। প্রয়াসের নিয়মিত প্রকাশনা অব্যাহত থাকুক, এটাই প্রতাশা।
আল্লাহ আমাদের সকল প্রচেষ্টা কবুল করুক। আমিন।